শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:২৬ অপরাহ্ন

কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহারে সতর্কতা

নিউজ ডেস্কঃ চোখের সমস্যায় ছোট-বড় সবাই ভুগে থাকেন। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ২৫ বছরেও কম বয়সীদের মধ্যে অন্তত ৩০ শতাংশই চোখের নানা ধরনের সমস্যায় ভোগেন।

বিশেষ করে মাইওপিয়া, হাইপারমেট্রোপিয়া বা অ্যাস্টিগসাটিজমের মতো চোখের সমস্যাগুলো এখন খুবই সাধারণ। আর চোখের যে কোনো সমস্যা ঠেকাতে চশমা বা কন্টাক্ট লেন্স পরার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

অনেকেই চশমা পরে সুবিধা বোধ করেন আবার কেউ কেউ চশমা পরার ঝামেলা এড়াতে বেছে নেন কন্টাক্ট লেন্স। শুধু চোখের সমস্যা নয়, বর্তমানে বাহারি কন্টাক্ট লেন্স পরার ট্রেন্ড চালু হয়েছে।

চোখের সৌন্দর্য বাড়াতে নারী-পুরুষ সবাই এখন বেছে নিচ্ছেন কন্টাক্ট লেন্স। তবে এটি ব্যবহারে মানতে হয় কিছু সতর্কতা। না হলে চোখ নিয়ে বিপাকে পড়তে পারেন। আগে জেনে নিন কন্টাক্ট লেন্স পরার সুবিধা ও অসুবিধা-

কন্টাক্ট লেন্সের সুবিধা

চশমা পরলে চোখের সৌন্দর্য ঢাকা পড়ে। অন্যদিকে লেন্স পরলে স্পষ্ট দৃষ্টিও পাওয়া যায় আবার চোখের সৌন্দর্যও বাড়ে।
খেলাধুলা বা যে কোনো শারীরিক কসরতের সময় চশমা পরে থাকা সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এক্ষেত্রে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করা সুবিধাজনক।

চোখের সমস্যা বেশি হলে চশমা পরেও কাজ হয় না। তখন কন্টাক্ট লেন্স পরলে চোখের দৃষ্টি স্পষ্ট করতে পারবেন। তা অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী।

কন্টাক্ট লেন্সের অসুবিধা

কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহারের প্রথম দিকে একটু অস্বস্তি হতে পারে। পরে অবশ্য ঠিক হয়ে যায়।

পরিষ্কার কন্টাক্ট লেন্স না পরলে চোখে সংক্রমণ বাড়তে পারে।

শুকিয়ে যাওয়া কন্টাক্ট লেন্স পরলে চোখে অস্বস্তি বাড়ে।

আবার দীর্ঘসময় কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করলেও চোখ জ্বালা-পোড়া করতে পারে।

নিম্মমানের কন্টাক্ট লেন্স পরলে চোখের সমস্যা বাড়ে।

কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহারে সতর্কতা

গোসলের সময় কন্টাক্ট লেন্স পরবেন না।

কখনও কন্টাক্ট লেন্স পরে ঘুমাবেন না

প্রতিবার ব্যবহারের পর তা পরিষ্কার করুন।

ব্যবহারের পর কন্টাক্ট লেন্স আবার সলিউশনে ডুবিয়ে রাখুন।

একটানা দীর্ঘক্ষণ কন্টাক্ট লেন্স পরে থাকবেন না।

প্রয়োজন ছাড়া কন্টাক্ট লেন্স পরবেন না।

ভালো মানের কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করুন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Design & Developed BY N Host BD