Warning: Creating default object from empty value in /home/theasian/dhakabizz.com/wp-content/themes/newsfresh/lib/ReduxCore/inc/class.redux_filesystem.php on line 29
কাঠের সেতুই ১০ হাজার মানুষের ভরসা চকরিয়ায় | Dhaka Bizz কাঠের সেতুই ১০ হাজার মানুষের ভরসা চকরিয়ায় – Dhaka Bizz

মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১১:২২ অপরাহ্ন

কাঠের সেতুই ১০ হাজার মানুষের ভরসা চকরিয়ায়

নিউজ ডেস্কঃ কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নের মেদাকচ্ছপিয়া তলিয়াঘোনা জোয়ার-ভাটা খালে কখনো পায়ে হেঁটে, কখনো খেয়া নৌকায় আসা-যাওয়া করতো স্কুল শিক্ষার্থীসহ অন্তত ১০ হাজার মানুষ। দু’পাড়ের লোকজনের যোগাযোগ ব্যবস্থায় দুর্ভোগ ছিল চরমে। বর্ষায় অনেকটা অবরুদ্ধ জীবন কাটাতে হতো বাসিন্দাদের। তাই দুই গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ কমাতে মেদাকচ্ছপিয়া তলিয়াঘোনা খালের উপর ২৫০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৪ ফুট প্রস্তের কাঠের সেতু নির্মাণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, চকরিয়া খুটাখালী ইউনিয়নের মেদাকচ্ছপিয়া তলিয়াঘোনা খালের দু’পাড়ে প্রায় ১০-১২ হাজার মানুষের বসবাস। এদের মধ্যে স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থী রয়েছে প্রায় দুই’শ। তলিয়াঘোনা জোয়ার-ভাটা খাল পারাপারে প্রতিদিন আনুমানিক ১০ হাজার মানুষের কষ্টের কথা চিন্তা করে গত ২০২০ সালে খুটাখালী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আকতার কামাল নিজস্ব অর্থায়নে একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করেন। দীর্ঘ এক বছর পরে সেতুটি ভেঙে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। সেতুটি ভেঙে পড়ায় গভীর খালটি পারাপারে আবারও কষ্টে পড়ে যান বাসিন্দারা। স্থানীয়দের এই দুর্ভোগ লাঘোব করতে চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ আলহাজ্ব জাফর আলম (এমএ) উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

এমপি জাফর আলমের নিজস্ব তহবিল থেকে ২৫০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৪ ফুট প্রস্থের কাঠের সেতু নির্মাণ করার জন্য অনুদান দেয়া হয়। উক্ত টাকা দিয়েই কাঠের সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে। সম্প্রতি সেতুটি উদ্বোধন করেন, খুটাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জয়নাল আবেদীন, সিনিয়র সহ-সভাপতি শফিকুর রহমান (শফি মেম্বার) ও সাধারণ সম্পাদক বাহাদুর হক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ঈদুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক আকতার কামাল, মনজুর আলম, নাছির উদ্দিন, আব্দুর রশিদ, মেহের আলী প্রমুখ। সেতুর উপর দিয়ে সর্বসাধারণের পারাপার উন্মুক্ত করা হয়।

নির্মাণ কাজের সাথে সম্পৃক্ত থাকা কামাল উদ্দীন নামের এক যুবক বলেন, খুটাখালী মেদাকচ্ছপিয়া তলিয়াঘোনা জোয়ার-ভাটা খাল পারাপারে প্রতিদিন আনুমানিক ১০ হাজার মানুষ কষ্ট পাচ্ছিল।

মানুষের কষ্ট চিন্তা করে ২০২০ সালে আমার নিজ অর্থায়নে কাঠের সেতু নির্মাণ করেছিলাম। এক বছর পরে সেতুটি ভেঙে পড়ে।

তিনি বলেন, পরে আমি বিষয়টি চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ আলহাজ্ব জাফর আলম (এমএ) কে জানালে তিনি তড়িৎ উদ্যোগ নেন। এমপি মহোদয় নিজ তহবিল কাঠের সেতু করার জন্য নগদ ২ লাখ টাকা অনুদান দেয়। উক্ত টাকা দিয়েই আমি নিজের তত্ত্বাবধায়নে সেতুটি নির্মাণ করেছি।

স্থানীয় বাসিন্দা ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ঈদুল আমিন বলেন, মেদাকচ্ছপিয়া তলিয়াঘোনা যে খালটি রয়েছে এটিতে দীর্ঘ ৩০-৩৫ বছর একটি খেয়া নৌকা ছিল। এখানে অন্য কোনো যাতায়তের ব্যবস্থা ছিল না। অনেক সময় খেয়া নৌকাটিও ডুবে থাকতো। মাঝে মধ্যে নৌকা মেরামতের জন্য তোলা হত। তখন জোয়ার- ভাটা দেখে পারাপার হতো লোকজন। বর্ষার সময় চলাচল করতে না পেরে এক প্রকার অবরুদ্ধ থাকতে হতো বাসিন্দাদের।

অনেক জনপ্রতিনিধিরা আশ্বাস দিলেও কোনো সুরাহ হয়নি। তবে বর্তমান চকরিয়া-পেকুয়া সাংসদ জাফর আলম বিএ অনার্স এমএ এর সাথে আলাপ করলে তিনি আশ্বাস না দিয়েই পনের দিনের মধ্যে নিজের তহবিল থেকে একটি কাঠের সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেন।

ইতোমধ্যে এমপি মহোদয় একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করে দিয়েছেন। ফলে স্থানীয় লোকজন, শিক্ষার্থীদের আসা-যাওয়া অনেকটা ঝুঁকি কমে গেছে।

এ ব্যাপারে সংসদ সদস্য জাফর আলম এমএ বলেন, মেদাকচ্ছপিয়া তলিয়াঘোনা খালে দীর্ঘদিন যাবত ওখানকার লোকজন একটি খেয়া নৌকা পেড়িয়ে ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হয়ে আসছে। ওখানকার স্থানীয় লোকজনের যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ করতে আমার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ২ লাখ টাকা যোগান দিয়েছি এবং একটি কাঠের সেতু নির্মাণ করেছি। ওখানে যাতে একটি স্থায়ী সেতুর নির্মাণ হয় সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরে যোগাযোগ করছি। যাতে দ্রুত গ্রামবাসীর দুর্ভোগ লাঘব হয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published.

Design & Developed BY N Host BD