শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ১০:১৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়ের বাবা আর নেই করোনার টিকা নিয়ে অপপ্রচার শুরু করেছে বিএনপি : কাদের ভ্যাকসিন সংরক্ষণে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে হবে প্রাথমিক শিক্ষকদের গ্রেড নিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আদেশ জারি দীর্ঘসময় তারুণ্য ধরে রাখতে মেনে চলবেন যেসব নিয়ম ব্যবহারকারীদের তথ্যগত গোপনীয়তা এবং ডেটা সুরক্ষাকে সম্মান করার আহ্বান ভারতের কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দীর্ঘস্থায়ী সৃষ্টি করে কিছু পানীয় আগ্রহী হলে বিএনপিকে যেন আগে করোনার ভ্যাকসিন দেয়া হয় : তথ্যমন্ত্রী ১০০০ মণের বেশি কাঁচাপাট এক মাসের বেশি মজুত করা যাবে না: বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী প্রাথমিকে উপবৃত্তি পেতে লাগবে জন্মনিবন্ধন সনদ

দিহানের বাসার দারোয়ানকে আটক করেছে পুলিশ

নিউজ ডেস্কঃ রাজধানীর মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেলের ছাত্রী আনুশকা নুর আমিনকে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া দিহানের কলাবাগান বাসার দারোয়ানকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই তিনি পলাতক ছিলেন বলে জানা যায়। তার নাম দুলাল।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে তাকে আটক করা হয়। ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার ডিসি মো. সাজ্জাদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ঘটনার বিষয়ে দারোয়ানকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে বন্ধু দিহানের মোবাইল কল পেয়ে বাসা থেকে বের হন রাজধানীর ধানমন্ডির মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেলের শিক্ষার্থী আনুশকা নুর আমিন। এরপর আনুশকাকে কলাবাগানের ডলফিন গলির নিজের বাসায় নিয়ে যান দিহান। ফাঁকা বাসায় শারিরীক সম্পর্কেরেএকপর্যায়ে মেয়েটি অসুস্থ হয়ে পড়লে দিহানসহ চার বন্ধু তাকে ধানমন্ডির আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ছাত্রীকে মৃত ঘোষণা করেন। ধর্ষণের পর অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয় বলে জানান চিকিৎসকরা। এ ঘটনার মামলায় দিহান গ্রেফতার রয়েছেন। তিনি ১৬৪ ধারায় আদালতে জবানবন্দিও দিয়েছেন।

এ ঘটনায় আনুশকার বাবা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে আমার স্ত্রী ও আমি বের হয় হই। পরে আমার মেয়ে বেলা সাড়ে ১১টায় তার মাকে ফোন দিয়ে বলে সে কোচিংয়ের পেপার্স আনতে বাইরে যাচ্ছে। দুপুর ১টা ১৮ মিনিটে দিহান আমার স্ত্রীকে ফোন দিয়ে বলে আমার মেয়ে তার বাসায় গিয়েছিল।

সেখানে হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়ায় তাকে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের জরুরি বিভাগে ভর্তি করেছে। এ কথা শুনে আমার স্ত্রী দুপুর ১টা ৫২ মিনিটের দিকে হাসপাতালে পৌঁছায়। সেখানে গিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসকের কাছে জানতে পারেন আমাদের মেয়েকে ধর্ষণ করে মেরে ফেলা হয়েছে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Design & Developed BY N Host BD