Warning: Creating default object from empty value in /home/theasian/dhakabizz.com/wp-content/themes/newsfresh/lib/ReduxCore/inc/class.redux_filesystem.php on line 29
হাতের লেখা দেখেও বোঝা যায় আপনি কেমন? | Dhaka Bizz হাতের লেখা দেখেও বোঝা যায় আপনি কেমন? – Dhaka Bizz

মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১০:৪৮ অপরাহ্ন

হাতের লেখা দেখেও বোঝা যায় আপনি কেমন?

নিউজ ডেস্কঃ আপনার হাতের লেখা বলে দিতে পারে, মানুষ হিসেবে আপনি কেমন? একজনের হাতের লেখা অন্যজনের চেয়ে ভিন্ন হয়। অনেকে অক্ষর বড় করে লেখেন আবার কেউ কেউ লেখে ছোট করে।

কারও লেখা হয় বাঁকা কারও আবার সোজা, কারও দুই শব্দের মধ্যে ফাঁকা থাকে বেশি আবার কারও কম। লেখার এসব পার্থক্য কিন্তু ব্যক্তিভেদে চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যও প্রকাশ করে।

এ বিষয়ে অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব অকল্ট সায়েন্সের গ্রাফোলজিস্ট হার্দিক জেথভা জানান, হাতের লেখা আমাদের পরিচয় সম্পর্কে অনেক কিছু প্রকাশ করে।

যার মধ্যে আছে শারীরিক স্বাস্থ্য, বুদ্ধিমত্তা, যোগ্যতা, প্রকৃতি, চরিত্র, শক্তি, দুর্বলতা, আসক্তি, অপরাধমূলক চিন্তাভাবনা, আগ্রহ, ঘৃণা কিংবা ক্ষমতার অবস্থা। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কোন হাতের লেখা কেমন ব্যক্তিত্ব প্রকাশ করে-

ওয়ার্ড স্পেসিং বা শব্দের ব্যবধান কী বলে?

কমপ্যাক্ট ওয়ার্ড স্পেসিং

যদি ব্যক্তির কম্প্যাক্ট ওয়ার্ড স্পেসিং থাকে তবে তারা অন্যদের কাছাকাছি থাকতে চান। তারা খুব স্বাধীন নন, তাদের বেশিরভাগই অন্যদের কাছ থেকে পরামর্শ ও সমর্থন খোঁজেন।

তারা সাধারণত এমন ধরনের মানুষ; যারা অন্যদের স্থান দেন না। সব সময় অন্যদের (গুপ্তচরবৃত্তির প্রকৃতি) সম্পর্কে জানতে আগ্রহী থাকেন তারা।

প্রসারিত শব্দ ব্যবধান

যদি কারও লেখায় প্রসারিত শব্দ ব্যবধান থাকে, তারা কখনো অন্যদের কাজে হস্তক্ষেপ করেন না। প্রয়োজন না হওয়া পর্যন্ত তারা অন্যদের সঙ্গে সহজে সংযোগ করেন না।

সাধারণ শব্দ ব্যবধান

যদি ব্যক্তির স্বাভাবিক শব্দ ব্যবধান থাকে তবে তিনি হবেন ভারসাম্যপূর্ণ প্রকৃতির। এ ধরনের মানুষেরা আনুষ্ঠানিক সম্পর্ক রাখেন। সহজ কথায় আমরা বলতে পারি, তারা কূটনৈতিক ধরনের লোক।

হাতের লেখার আকার কী বলে?

অতিরিক্ত বড় হাতের লেখা যাদের, তারা আধিপত্যশীল ও বহির্মুখী প্রকৃতির হন।

আবার অতিরিক্ত ছোট (কিন্তু সুস্পষ্ট) হাতের লেখা যাদের, তারা অন্যদের ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারেন। তারা মনোযোগী হন।

সাধারণ আকারের হাতের লেখা যাদের, তারা ভারসাম্যপূর্ণ প্রকৃতির হন। ভালো অনুসারী ও আনুগত্য আছে তাদের মধ্যে। তারা একগুঁয়ে নন ও শান্তিপূর্ণ প্রকৃতির হন।

যাদের লেখা পরিবর্তনশীল তারা হন সাধারণত মুডি। তারা অলস প্রকৃতির হন ও এ ধরনের মানুষের ওপর সহজে ভরসা করা যায় না।

বাঁকা হাতের লেখা কী বলে?

তির্যক শব্দটি এখানে বোঝানো হয়েছে লেখা ঠিক কোন দিকে ঝুঁকে পড়ে।

ডান তির্যক

লেখা ডান দিকে ঝুঁকে পড়ে যাদের, তারো দূরদর্শী, সাহায্যকারী, দয়ালু ও বন্ধুত্বপূর্ণ প্রকৃতির হন। এদের মধ্যে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা থাকে অনেক, তারা সব বিষয়েই প্রকৃত মানসিক অনুভূতি প্রকাশ করেন।

বাম তির্যক

যাদের লেখা বাম দিকে ঝুঁকে বেশি, তারা কখনো মনের কথা কম বলেন। অর্থাৎ মনে ও মুখে ভিন্ন তারা। মনে তারা যা ভাবেন, তা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মুখে প্রকাশ করেন না তারা।

সোজা বা উল্লম্ব তির্যক

যাদের সোজা লেখা তাদের মধ্যে একাগ্রতা, স্মৃতিশক্তি, ইচ্ছাশক্তি, দৃঢ় সংকল্প ও আত্মবিশ্বাস বেশি থাকে। তারা সিদ্ধান্তে থাকেন অটল।

গ্রাফোলজি বিভিন্নভাবে উপকারী হতে পারে। শিশুর বিকাশে সহায়তা করার পাশাপাশি ক্যারিয়ার নির্বাচন করতে, গার্হস্থ্য সহিংসতার সম্ভাবনা সম্পর্কে বুঝতে বা ভবিষ্যদ্বাণী করতে, জীবনসঙ্গী সন্ধান করতেও সাহায্য করে গ্রাফোলজি।

এ ছাড়া ব্যবসায়িক অংশীদার খোঁজা, অপরাধবিদ্যা ও নির্বাচনের উন্নতিতেও সহায়তা করে। এ বিশেষ পদ্ধতির হাতের লেখা একজনের ব্যক্তিত্বের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জানার একটি দুর্দান্ত উপায়।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া


Leave a Reply

Your email address will not be published.

Design & Developed BY N Host BD